February 13, 2024
Book Review Blog

7টি বিখ্যাত গোয়েন্দা বই শার্লক হোমস পড়া কেন প্রয়োজন

বিখ্যাত গোয়েন্দা বই

বিখ্যাত গোয়েন্দা বই এর তালিকায় স্যার আর্থার কোনান ডয়েলের শ্রেষ্ঠ গোয়েন্দা চরিত্র শার্লক হোমস।

শার্লক হোমস (ইংরেজি: Sherlock Holmes) ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষভাগ ও বিংশ শতাব্দীর প্রথম ভাগের একটি কাল্পনিক গোয়েন্দা চরিত্র। ১৮৮৭ সালে প্রথম আবির্ভূত এই চরিত্রের স্রষ্টা ব্রিটিশ লেখক ও চিকিৎসক স্যার আর্থার কোনান ডয়েল। শার্লক হোমস একজন উচ্চমেধাসম্পন্ন লন্ডন-ভিত্তিক পরামর্শদাতা গোয়েন্দা। তিনি 1887 সালে ‘স্ট্যাডি ইন স্কারলেট’ উপন্যাসের মাধ্যমে বিখ্যাত গোয়েন্দা চরিত্র ‘শার্লক হোমস’ এবং তার বন্ধু ‘ডক্টর ওয়াটসন’ এর সাথে পৃথিবীব্যাপি পাঠকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন।

এখানে 7টি পৃথিবী বিখ্যাত গোয়েন্দা বই এর তালিকা দেয়া হলোঃ

1. আ স্টাডি ইন স্কারলেট (উপন্যাস – রক্ত সমীক্ষা)
স্যার আর্থার কোনান ডয়েলের লেখা ‘এ স্টাডি ইন স্কারলেট’ রহস্য উপন্যাসটি সারা দুনিয়ার পাঠকদের কাছে পরিচিত। উপন্যাসটির রচনাকাল 1886 সাল। এটি একটি বাস্তবধর্মী উপন্যাস।

বিখ্যাত গোয়েন্দা বই

‘আ স্টাডি ইন স্কারলেট’ রহস্য উপন্যাস হলেও এতে রয়েছে ইতিহাসের অনেক উপাদান। অস্তগামী ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের রক্ত ক্ষরণের দাগ রয়েছে উপন্যাসে। এতে আরও রয়েছে আফগান যুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন। সে সময়ে আফগানদের সাথে ইংরেজদের যুদ্ধ হয়। যুদ্ধে বিজয়ী হয় ইংরেজরা। উপন্যাসটি লেখা হয়েছে উত্তম পুরুষে। চরিত্রটির নাম ডক্টর ওয়াটসন। তিনি 1878 থেকে 1880 সাল পর্যন্ত সংঘটিত দ্বিতীয় আফগান যুদ্ধে অংশ নেন। ইংরেজরা ভারতবর্ষে আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হলেও কখনই আফগানিস্তানে আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়নি। ফলে বার বার যুদ্ধে জড়িয়ে গিয়েছে। এক সময় কান্দাহার ছিল আফগানিস্তানের রাজধানী। ই-আফগান যুদ্ধের সময় 1839 থেকে 1842 সাল এবং 1879 থেকে 1881 সাল পর্যন্ত কান্দাহার ব্রিটিশ সেনার দখলে ছিল। পরে তা হাতছাড়া হয়ে যায়। তাই ডক্টর ওয়াটসন স্মৃতিতে কান্দাহারের স্মৃতি জাগরুক ছিল। এভাবেই লেখক তার উপন্যাসে ইতিহাসের উপাদান যোগ করেছেন।

2. দ্য সাইন অফ ফোর (উপন্যাস – চিহ্ন চতুষ্টয়)

বিখ্যাত গোয়েন্দা বই

আর্থার কোনান ডয়েলের দ্বিতীয় উপন্যাস, দ্য সাইন অফ ফোর, যেখানে শার্লকের মাদকের ব্যবহার প্রথম চিত্রিত করা হয়েছে এবং পাঠকরা অবশেষে গোয়েন্দার পিছনের লোকটিকে দেখতে শুরু করে। এটিও সেই উপন্যাস যেখানে ড. ওয়াটসনের ভবিষ্যত স্ত্রী মেরি মার্স্টন উপস্থিত হয়৷ অদ্ভুত লন্ডন গলির এই অন্ধকারাচ্ছন্ন বায়ুমণ্ডলীয় বইটিতে, মুক্তোর একটি রহস্যময় বার্ষিক প্যাকেজ এবং একজন অদৃশ্য বাবার উপস্থিত রয়েছে। ‘দ্য সাইন অফ ফোর’ রহস্য উপন্যাসের জগতে হয়ে উঠেছে অন্যতম সেরা রহস্য উপন্যাস।
এখান থেকে পড়তে পারবেন

3. দ্য হাউন্ড অফ দ্য বাস্কেরভিলস (উপন্যাস – বাস্কারভিল পরিবারের শিকারী কুকুর)
স্যার আর্থার কোনান ডয়েল কর্তৃক রচিত ‘দ্য হাউন্ড অফ দ্য বাস্কেরভিলস’ হচ্ছে তার তৃতীয় রহস্য উপন্যাস। শার্লক হোমস বিশেষজ্ঞরা ‘দ্য হাউন্ড অফ দ্য বাস্কেরভিলস’-কে লেখকের শ্রেষ্ঠ উপন্যাস হিসাবে গণ্য করেন। উপন্যাসে স্যার চার্লস বাস্কারভিলের অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা পূনরায় তদন্তের দায়িত্ব নেন শার্লক হোমস এবং সহযোগী ডক্টর ওয়াটসন। চার্লসের মৃতদেহ থেকে কিছু দূরে একটি অতিকায় শিকারী কুকুরের পায়ের চিহ্ন পাওয়া যায়। এখান থেকেই হোমসের তদন্ত শুরু। কিন্তু বিজ্ঞানের দুনিয়া এমন কোনো প্রাণির হদিস পায়নি। অনেকেই বলছে, জানোয়ারটি আকারে অতিকায়, বিকট এবং প্রেতচ্ছায়ার মতন। লেখকের বর্ণনায় ঘটনার জটিলতা ক্রমশ জটিলতর হয়েছে। এরপর ধীরে ধীরে তিনি জট খুলেছেন।

দ্য-হাউন্ড-অফ-দ্য-বাস্কেরভিলস

উপন্যাসটি শুরু হয়, জলাভূমি, সাসপেন্স, রাতের জানালা থেকে মোমবাতির সংকেত এবং দুর্ভেদ্য কুয়াশা দিয়ে ঢাকা শীতল, নিমগ্ন এবং অবিশ্বাস্যভাবে সন্তোষজনক, এই সত্যিকারের ভীতিকর উপন্যাসটি হতাশ করবে না। সাসপেন্স, রহস্য এবং অতিপ্রাকৃত হররকে দক্ষতার সাথে মিশ্রিত করা, ‘দ্য হাউন্ড অফ দ্য বাস্কেরভিলস’ একটি অসাধারণ সাহিত্যিক অর্জন।

4. দ্য ভ্যালি অফ ফিয়ার (উপন্যাস – আতংকের উপত্যকা)

দ্য-ভ্যালি-অফ-ফিয়ার

স্যার আর্থার কোনান ডয়েলের চতুর্থ উপন্যাস ‘দ্য ভ্যালি অব ফিয়ার’। রহস্যজনক ঘটনার সূত্রপাত একটি হত্যাকান্ড নিয়ে। হত্যাকান্ডটি ছিল রোমহর্ষক এবং রহস্যজনক। হত্যাকাণ্ডটি অনেকটা নিশ্চিত। খুনি অচিহ্নিত। একটি রহস্যজনক চরিত্র পোর্লক। এটি ছদ্মনাম। একে কেউ চিনে না। গল্পের সূচনা হয়েছে পোর্লকের গুপ্তলিখন দিয়ে। পোর্লক অংকের মাধ্যমে শার্লককে একটি চিঠি লিখেছেন। ফ্রেড পোর্লক প্রফেসর মরিয়ার্টির একজন এজেন্ট। লিখনের পাঠোদ্ধার করতে সক্ষম হন ডক্টর ওয়াটসন আর হোমস। মি. ডগলাস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা অনুসন্ধানে পুলিশিদের সাথে গোয়েন্দা শার্লক হোমস জড়িয়ে পড়েন। পোর্লকের গুপ্তলিখনে রয়েছে বির্লস্টোনের নাম। তাই ঘটনা অনুসন্ধানের সময় ম্যানর হাউসকেই মনে হয়েছে ‘দ্য ভ্যালি অব ফিয়ার’। এখান থেকেই ছড়িয়েছে রহস্যের ডালপালা।

বাংলা সাহিত্যের 10টি সেরা উপন্যাস

5. দ্য অ্যাডভেঞ্চারস অফ শার্লক (ছোট গল্প সিরিজি)
দি অ্যাডভেঞ্চারস অফ শার্লক হোমস (ইংরেজি: The Adventures of Sherlock Holmes) হল আর্থার কোনান ডয়েল রচিত বারোটি ছোটগল্পের একটি সংকলন। বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৮৯২ সালের ১৪ অক্টোবর। এই সংকলনে পরামর্শদাতা গোয়েন্দা শার্লক হোমসের কীর্তিকলাপ-সম্পর্কিত প্রথম ছোট গল্পগুলি অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

দ্য-অ্যাডভেঞ্চারস-অফ-শার্লক

এই সিরিজের গল্পগুলি শার্লকের আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে গভীরভাবে ধারণা পাওয়া যায়। এই সংকলনের প্রথম গল্প, ‘আ স্ক্যান্ডাল ইন বোহেমিয়া,’ আইরিন অ্যাডলার নামে একজনকে সমন্বিত করে। গোয়েন্দা সম্পর্কে প্রথম প্রকাশিত গল্প না হওয়া সত্ত্বেও এটি সেই গল্প যা শার্লক হোমস’কে পরিচিত করেছিল।
বইটি এখান থেকে পড়তে পারবেন

6. দ্য কেস বুক অব শার্লক হোমস (ছোট গল্প)

দ্য-কেস-বুক-অব-শার্লক-হোমস

খ্যাতিমান গোয়েন্দা শার্লক হোমস আর তার বন্ধু ডক্টর ওয়াটসনের অসাধারন চারটি গোয়েন্দা অভিযানের সংকলন দ্য কেস বুক অব হোমস-1।
শার্লক হোমসের কেসবুক-এ, পাঠক হোমস এবং ওয়াটসনের অনুসরণ করা গোয়েন্দা অভিযানগুলি উপভোগ করতে পারবেন। এই গল্পগুলির মধ্যে দুটি শার্লক নিজেই বর্ণনা করেছেন, যা একটি উত্তেজনাপূর্ণ পড়ার অভিজ্ঞতা তৈরি করে!

7. দ্য মেমোর্য়াস অব শার্লক হোমস (ছোট গল্প)
খ্যাতিমান গোয়েন্দা শার্লক হোমস আর তাঁর বন্ধু ডক্টর ওয়াটসন এর অসাধারন পাঁচটি গোয়েন্দা অভিযানের সংকলন ‘দ্য মেমোর্য়াস অব শার্লক হোমস’।

দ্য-মেমোর্য়াস-অব-শার্লক-হোমস

এই গ্রন্থ্যের প্রতিটি গল্পেই রয়েছে রহস্যের টানটান উত্তেজনা। সহজেই গল্পগুলো পড়তে পড়তে রোমাঞ্চিত হয়ে পড়বেন। এই গ্রন্থের প্রথম গল্পের নাম ‘সিলফার ব্লেজ’। সিলভার ব্লেজ দুর্দান্ত একটি রেসের ঘোড়া। হঠান খুন হয়েছেন এই ঘোড়ার-ট্রেনার। এই নিয়ে কাগজে তুলকালাম কাণ্ড শুরু হয়েছে। কাজেই বলা যায় ‘সিলফার ব্লেজ’ গল্পটির সূচনা হয়েছে রহস্যময় ঘটনা দিয়ে। সকলের মনেই প্রশ্ন, কে এই ঘোড়ার প্রশিক্ষককে খুন করেছে? কেন করেছে? রহস্যের সমাধান করতে ডাক পড়ল শার্লক হোমসের। বন্ধু ওয়াটসনকে নিয়ে সে ট্রেনে চেপে রওনা দিল ডার্টমুর কিংস পাইল্যান্ডে।

উল্লেখিত স্যার আর্থার কোনান ডয়েল এর বইগুলো পড়লে বুঝতে অসুবিধা হবে না কে এই বিখ্যাত গোয়েন্দা বই এর কাল্পনিক চরিত্র শার্লক হোমস। শার্লকের পুরো নাম উইলিয়াম শার্লক স্কট হোমস। জন্ম 6 জানুয়ারী, 1854 খ্রিঃ শুক্রবার বিকেল বেলায়। বাবা সাইগার হোমস আর মা ভায়োলেট শেরিন ফোর্ড। বাবার ইচ্ছা ছিল শার্লক ইঞ্জিনিয়ার হবেন। কিন্তু শার্লক হয়ে গেলেন বিশ্বের একমাত্র পরামর্শদাতা গোয়েন্দা। তাঁর যোগ্য সঙ্গী সহযোগী বন্ধুবর লেখক ডক্টর ওয়াটসন রহস্য উৎঘাটনের চেষ্টায় সর্বদা শার্লকের সহযোগী ছিলেন। হোমস অবিবাহিত। 221/বি, বেকার স্ট্রীট, লন্ডনে ভাড়া বাসায় থাকতেন শার্লক হোমস।

লেখক
স্যার আর্থার ইগনেতিয়াস কোনান ডয়েল (২২ মে ১৮৫৯ – ৭ জুলাই ১৯৩০) ছিলেন একজন ইংরেজ লেখক ও চিকিৎসক। তার শার্লক হোম্‌সের গল্পসমূহের জন্য তিনি বিশ্বব্যাপী পরিচিত। তার অন্যান্য রচনার মধ্যে রয়েছে কল্পবিজ্ঞান গল্প, নাটক, প্রেমের উপন্যাস, কবিতা, ননফিকশন, ঐতিহাসিক উপন্যাস এবং রম্যরচনা। ডয়েল শার্লক হোমসকে নিয়ে সব মিলিয়ে 4টি উপন্যাস, আর 56টি ছোট গল্প লিখেন।

0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest

0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x